Sunday , August 25 2019
Home / Different News / দেখুন পৃথিবীর অদ্ভুত কিছু যৌন নিয়ম, যা দেখলে চোখ কপালে উঠবে আপনার

দেখুন পৃথিবীর অদ্ভুত কিছু যৌন নিয়ম, যা দেখলে চোখ কপালে উঠবে আপনার

পৃথিবীর অদ্ভুত কিছু যৌন আইন, যা দেখলে আপনার মাথা ঘুরে যাবেঃ বিশ্ব এখন অনেক আধুনিক হয়েছে। সভ্যতার ছোয়ায় মানুষ এখন অনেক কিছু শিখেছে। অনেক ভ্রান্ত বিশ্বাস এখন নেই সমাজে। তারপরও কিছু কিছু দেশে এমন সব আইন প্রচলিত আছে

যা দেখলে আপনার চোখ কপালে ওঠবে। ভাববেন এই আধুনিক সমাজেও এমন বর্বর মানুষ বাস করে। আজকে দেখুন এমনই কিছু যৌন আইন যা দেখলে আপনি অবাক না হয়ে পারবেন না। ভিডিওটি সম্পূর্ন দেখবেন।

ভিডিওটি পোষ্টের নিচে দেয়া আছে।

—————————————–

আরো পড়ুনঃ

বিনামূল্যে জানেন ছাত্রছাত্রীদের কেন সুগন্ধী কন্ডোম দেবে সরকার?

মারণ এইডস প্রতিরোধে রঙিন ও সুগন্ধী কন্ডোম৷ তাও আবার ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে তুলে দেওয়া হবে৷ এক্কেবারে বিনামূল্যে৷ শুধু তাই নয়, এই রঙ-বেরঙের সুগন্ধী গর্ভনিরোধক বিলি করবে খোদ সরকার৷

দেশে বেড়ে চলা এইচআইভি প্রতিরোধে এমনই দৃষ্টান্তমূলক সিদ্ধান্ত নিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা সরকার। সরকার চাইছে ছোটবেলা থেকেই এইচআইভি নিয়ে সতর্ক হোক পড়ুয়ারা।

মন্ত্রকের উপলব্ধি, বাজারচলতি কন্ডোমে অনেক ক্ষেত্রে ত্রুটি থেকে যায়৷ আবার দম্পতিদের মধ্যে বাজারচলতি কন্ডোম ব্যবহারে অনীহা দেখা যাচ্ছে৷ এরফলে বাড়ছে এইচআইভি আক্রান্তের সংখ্যা৷ তাই, সরকার স্থির করেছে সাধারণ মানুষের কাছে আকর্ষণ বাড়াতে সুগন্ধী রঙ-বেরঙের গর্ভনিরোধক বিলি করবে৷

পরিসংখ্যান বলছে, দক্ষিণ আফ্রিকার প্রায় ৬.৪ মিলিয়ন নাগরিক এইচআইভি পজিটিভ শরীরে বহন করছেন৷ তারা ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে৷ দক্ষিণ আফ্রিকার হিউম্যান সায়েন্সস রিসার্চ কাউন্সিলের (এইচএসআরসি) এক সমীক্ষায় বলছে, গত কয়েক বছরে ওই দেশে এইচআইভি পজিটিভ আক্রান্তের সংখ্যা হু হু করে বাড়ছে৷

তারা পরিসংখ্যান দিচ্ছে, ২০০৮ সালে এই রোগের আক্রান্তের বৃদ্ধির হার ছিল ১০.৬ শতাংশ৷ সেখানে ২০১২ সালে বৃদ্ধির হার হয়েছে ১২.২ শতাংশ৷ ওই দেশের নাগরিকের সংখ্যা ৫০ মিলিয়ন৷ সেখানে ৬.৪ মিলিয়ন নাগরিক বহন করছে এইচআইভি পজিটিভ৷

২০০৮ সালে ৮৫ শতাংশ পুরুষ এবং ৬৬ শতাংশ মহিলা এই মারণরোগে বাহক ছিলেন৷ যা ২০১২ সালে গিয়ে আরও বৃদ্ধি পেয়েছে৷ তবে, বর্তমান আক্রান্তের মধ্যে ৭৫ শতাংশ মানুষের এখনও পর্যন্ত ঝুঁকি কম রয়েছে৷

এই সমীক্ষা এখন মাথাব্যথার কারণ দক্ষিণ আফ্রিকা সরকারের স্বাস্থ্যমন্ত্রকের৷ নানা উপায়ে এই রোগের প্রকোপ কমানোর চেষ্টা কার্যত বিফলে যাচ্ছে৷

ওই সমীক্ষার সূত্র ধরে দক্ষিণ আফ্রিকা সরকারের উপলব্ধি, ১৫ থেকে ২৪ বছর বয়সীরা এইচআইভি পজিটিভের সবচেয়ে বেশি বাহক৷ এই রোগ-প্রতিরোধে কন্ডোম ব্যবহারে চরম অনীহাকেই মূল দায় বলে মনে করছে স্বাস্থ্যমন্ত্রক৷

তাই, এবার অন্যপথ ধরে এগতে চাই তারা৷ কন্ডোম ব্যবহারে যৌনক্রিয়া করায় ছাত্রছাত্রীদের আগ্রহী করে তোলার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে৷ তাই চূড়ান্ত হয়েছে, ছাত্রছাত্রীদের হাতে তুলে দেওয়া হবে সুগন্ধী এবং রঙবেরঙের কন্ডোম৷

স্থাস্থ্যকর্তাদের ধারনা, ব্যাপক প্রচার ও সচেতনা শিবিরের মাধ্যমে এই সুগন্ধী কন্ডোমের কথা তুলে ধরা হবে৷ স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে বিনামূল্যে বিলি করা হবে সুগন্ধী কন্ডোম৷

মনে করা হচ্ছে, গন্ধ এবং নানা রঙের হওয়ার কারণে ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে কন্ডোমের ব্যবহার বাড়বে৷ স্বাভাবিকভাবেই তাতে কমিয়ে আনা সম্ভব এইচআইভি পজিটিভের বাহকের হার৷

Check Also

ঘুমাবার আগে আপনার স্ত্রী সাথে এই ৫ টি কাজ করুন, তাহলে সে আপনাকে কোন দিন ধোকা দেবে না জানুন…

ঘুমাবার আগে আপনার স্ত্রী সাথে- বিয়ে করা আর সেই সম্পর্ককে টিকিয়ে রাখা কোন রকমের সহজ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *